রোমানিয়া যেতে কত টাকা লাগে ২০২৪

রোমানিয়া যেতে কত টাকা লাগে, সরকারি ভাবে রোমানিয়া যাওয়ার উপায় এবং রোমানিয়া ভিসার দাম কত সহ আরো বিভিন্ন তথ্য জানুন।

ইউরোপের অন্যতম সুন্দর ও অর্থনৈতিক উন্নত একটি দেশ রোমানিয়া। বাংলাদেশ থেকে প্রতি বছর বহু মানুষ কাজের উদ্দেশ্য রোমানিয়া যাচ্ছেন।

যারা নতুন রোমানিয়া যেতে চাচ্ছেন তাদেন মনে রোমানিয়া সম্পর্কে অনেক প্রশ্ন রয়েছে। আজকের এই আর্টিকেলে আমরা জানবো বাংলাদেশ থেকে রোমানিয়া যেতে কত টাকা লাগে বা রোমানিয়া ভিসার দাম কত, রোমানিয়া বেতন কত সহ আরো বিভিন্ন বিষয়।

নোটিশ: বর্তমানে বাংলাদেশী নাগরিকদের রোমানিয়া ভিসা আবেদন পত্র ভারতের দিল্লিতে অবস্থিত রোমানিয়া দূতাবাসে জমা দিতে হবে এবং সেখানে আপনাকে ইন্টারভিউ দিতে হবে।

রোমানিয়া যেতে কত টাকা লাগে ২০২৪

রোমানিয়া যেতে ৬ থেকে ৮ লক্ষ টাকা লাগে। তবে, বিভিন্ন ভিসা ক্যাটাগরি এবং ভিসা এজেন্সি ভেদে টাকার পরিমান কিছুটা কম বেশি হতে পারে।

তাছাড়া রোমানিয়া যেতে কত টাকা লাগে সেটা সম্পূর্ণভাবে নির্ভর করে আপনার ভিসা ক্যাটাগরির উপর। একেক ক্যাটাগরির ভিসার দাম একেক রকম।

আর আপনি যদি দালালের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে রোমানিয়া যান তাহলে ৮ থেকে ১০ লক্ষ টাকা লাগে। আপনারা সব সময় চেষ্টা করবেন সরকারি ভাবে রোমানিয়া যাওয়ার জন্য। সরকারি ভাবে রোমানিয়া যেতে ৫ থেকে ৬ লক্ষ টাকা খরচ হবে।

রোমানিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা যেতে কত টাকা লাগে

বাংলাদেশ থেকে রোমানিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসার যেতে চাইলে ৮ থেকে ১০ লক্ষ টাকা লাগে। বিভিন্ন ভিসা এজেন্সি ভেদে এর টাকার পরিমান কিছুটা কম বেশি হতে পারে। আর আপনি যদি সরকারিভাবে রোমানিয়া যান তাহলে ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় ৫ থেকে ৬ লক্ষ টাকা লাগে।

রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসা যেতে কত টাকা লাগে

বাংলাদেশ থেকে যারা রোমানিয়ায় পড়াশোনা করতে যেতে চাচ্ছেন তাদের অবশ্যই রোমানিয়ার কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করার সুযোগ পেতে হবে। আপনি যদি পড়াশোনা করার সুযোগ পান তাহলে বেশি টাকা খরচ হবে না।

স্টুডেন্ট ভিসায় রোমানিয়া যেতে সর্বচ্চো খরচ হবে ৭০ থেকে ৭৫ ইউরো পর্যন্ত। এই সামান্য খরচে আপনি রোমানিয়া পড়াশোনা করতে পারবেন।

আর আপনি যদি স্কলারশিপ না পেয়ে বেসরকারিভাবে রোমানিয়া পড়াশোনা করতে যেতে চান তাহলে ৪ থেকে ৫ লক্ষ টাকা লাগবে।

রোমানিয়া বিজনেস ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে

রোমানিয়া বিজনেস ভিসায় যেতে আপনার খরচ হবে ৮ থেকে ১০ লক্ষ টাকা। যদি সরকারভাবে রোমানিয়ায় বিজনেস করতে যেতে চান তাহলে ৫ থেকে ৬ লক্ষ টাকা লাগে। আর বেসরকারিভাবে বিজনেস ভিসায় যেতে ৮ থেকে ১০ লক্ষ টাকা লাগে।

বাংলাদেশ থেকে বাহিরের অন্যান্য দেশে গিয়ে বিজনেস করে অনেক বেশি টাকা আয় করা যায়। এজন্য বাংলাদেশ থেকে প্রত্যেক বছর বহু মানুষ রোমানিয়া যাচ্ছেন বিজনেস করার জন্য।

রোমানিয়া টুরিস্ট ভিসা যেতে কত টাকা লাগে

ইউরোপের অন্যতম সুন্দর একটি দেশ রোমানিয়া। বাংলাদেশ থেকে রোমানিয়া ভ্রমণ করার জন্য খুব সহজে টুরিস্ট বা ভ্রমণ ভিসা সহজে পাওয়া যায়।

রোমানিয়ায় ভ্রমণ করার জন্য অনেক স্থান রয়েছে সে সকল স্থান গুলো পর্যটকদের কাছে অনেক আকর্ষণীয়। বাংলাদেশ থেকে রোমানিয়া টুরিস্ট ভিসায় যেতে ৪ থেকে ৫ লক্ষ টাকা লাগে।

রোমানিয়া ড্রাইভিং ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে

রোমানিয়া ড্রাইভিং ভিসায় যেতে ৬ থেকে ৭ লক্ষ টাকা লাগে। এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে ড্রাইভিং লাইসেন্স এর কার্ড এবং দক্ষ ড্রাইভিং জানতে হবে। রোমানিয়াতে ড্রাইভিং কাজের চাহিদা অনেক বেশি এবং বেতন অন্যান্য কাজের তুলনায় অনেক বেশি।

রোমানিয়া বেতন কত

বর্তমান সময়ে রোমানিয়াতে শ্রমিকদের বেতন সর্বনিন্ম ৫০০ ডলার (বাংলাদেশী টাকায় ৫০ হাজার টাকার বেশি) নির্ধারন করা হয়েছে। তাছাড়া আপনার কাজের দক্ষতার উপর নির্ভর করবে বেতন।

আপনার কাজে যদি দক্ষতা থাকে তাহলে মাসে ৫০ থেকে ৮০ হাজার টাকার পর্যন্ত বেতন পাবেন। তাই আপনারা যারা রোমানিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে যাবেন তারা অবশ্যই কাজ শিখে যাবেন।

রোমানিয়া ভিসার দাম কত

রোমানিয়া ভিসার দাম ৬ থেকে ৮ লক্ষ টাকা। তবে আপনি কোন ভিসায় রোমানিয়া যেতে চাচ্ছেন তার উপর নির্ভর করে ভিসার দাম। একেক ক্যাটাগরির ভিসার দাম একেক রকম।

নিচে রোমানিয়ার কয়েকটি ক্যাটাগরি ভিসার দাম উল্লেখ করা হয়েছে,

ভিসা ক্যাটাগরিদাম
ওয়ার্ক পারমিট ভিসা৫ থেকে ৬ লক্ষ টাকা (সরকারি খরচ), ৮ থেকে ১০ লক্ষ টাকা (দালাল বা এজেন্সির মাধ্যমে)।
স্টুডেন্ট ভিসা৭০ থেকে ৭৫ ইউরো (স্কলারশিপ পেলে), ৪ থেকে ৫ লক্ষ টাকা (বেসরকারিভাবে)।
টুরিস্ট ভিসা৪ থেকে ৫ লক্ষ টাকা।
ড্রাইভিং ভিসা৬ থেকে ৭ লক্ষ টাকা।
বিজনেস ভিসা৫ থেকে ৬ লক্ষ টাকা। (সরকারিভাবে), ৮ থেকে ১০ লক্ষ টাকা (বেসরকারিভাবে)।
রোমানিয়া ভিসার দাম কত

সরকারি ভাবে রোমানিয়া যাওয়ার উপায়

বাংলাদেশ থেকে সরকারিভাবে রোমানিয়া যাওয়ার জন্য আপনাকে রোমানিয়ার কোম্পানির নিয়োগ গুলোতে আবেদন করতে হবে। রোমানিয়ার অনেক কোম্পানি তাদের প্রতিষ্ঠানে কর্মী নিয়োগ বিজ্ঞাপ্তি ওয়েবসাইটে প্রকাশ করে।

http://www.probashi.gov.bd এবং http://www.boesl.gov.bd ওয়েবসাইটে আপনারা রোমানিয়ার নিয়োগ বিজ্ঞাপ্তি পেয়ে যাবেন।

আপনার যোগ্যতা অনুসারে জবের জন্য আবেদন করতে হবে। বাংলাদেশী নাগরিকদের রোমানিয়া ভিসা আবেদন পত্র ভারতের দিল্লিতে অবস্থিত রোমানিয়া এম্বাসির কনস্যুলার বিভাগে জমা দিতে হবে।

কিছুদিন আগে রোমানিয়া ভিসা টিম বাংলাদেশে অবস্থান করে ভিসার আবেদন গ্রহণ করেছিলো। বর্তমান সময়ে আবার ভারতের দিল্লিতে রোমানিয়া এম্বাসিতে আবেদন করতে হবে।

এম্বাসি থেকে বলা হয়েছে সকল ভিসায় আবেদনকারীদের কাজের পারমিট এবং ই-ভিসা প্রক্রিয়ার আবেদনের তারিখের উপর ভিত্তি করে ইন্টারভিউ নেওয়া হবে।

এম্বাসিতে আপনার ইন্টারভিউ সরাসরি নেওয়া হবে। ইন্টারভিউ ইংরেজি বা রোমানীয় কোন ভাষায় দিবেন সেটা আবেদনকারীকে আগেই জানিয়ে দিতে হবে।

শেষ কথা

আজকে আমরা জানলাম রোমানিয়া যেতে কত টাকা লাগে, রোমানিয়া বেতন কত, সরকারভাবে রোমানিয়া যাওয়ার উপায় সহ আরো বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে। এই বিষয় কোনো প্রশ্ন থাকলে কমেন্টে জানাবেন।

FAQ

বাংলাদেশ থেকে রোমানিয়া যেতে কত টাকা লাগে?

বাংলাদেশ থেকে রোমানিয়া যেতে ৬ থেকে ৮ লক্ষ টাকা লাগে। তবে রোমানিয়ার আপনি কোন ভিসা নিয়ে যাবেন সেটার উপর ভিসার দাম নির্ধারণ করা হয়। একেক ক্যাটাগরির ভিসার দাম একেক রকম।

রোমানিয়ার মেয়ােরা কেমন?

ইউরোপের অন্যতম সুন্দর দেশ রোমানিয়া। সেখানকার মেয়েরা অনেক সুন্দরী এবং তারা লিপস্টিক ও মেকআপের প্রতি অনেকটা দু্র্বল।

রোমানিয়া কি সেনজেন ভুক্ত দেশ?

রোমানিয়া ইউরোপিয় ইউনিয়নের পূর্ণাঙ্গ একটি দেশ হওয়া সত্ত্বেও এখনো সেনজেন ভুক্ত দেশ হতে পারিনি। তবে খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে রোমানিয়া সেনজেন ভুক্ত দেশের আওতায় চলে আসবে।

রোমানিয়ার ভাষার নাম কি?

রোমানিয়ার সরকারি ভাষা রোমানীয়। তাদের দেশের ৯০% মানুষ রোমানীয় ভাষায় কথা বলে। আর বাকি ৭% মানুষ হাঙ্গেরি ভাষায় কথা বলে।

রোমানিয়া ভিসা আপডেট ২০২৩

বর্তমানে বাংলাদেশীদের জন্য রোমানিয়া ভিসা খোলা আছে এবং রোমানিয়া ভিসা আবেদন করা যাচ্ছে এবং ভিসা পাওয়া যাচ্ছে। আগে বাংলাদেশীদের রোমানিয়া যাওয়ার জন্য ভারতে গিয়ে রোমানিয়া এম্বাসি থেকে আবেদন করতে হত।

রোমানিয়া সম্পর্কে আরো তথ্য পড়ুন

Similar Posts

4 Comments

  1. রোমানিয়া যেতে চাচ্ছি
    কোন এজেন্সি মাধ্যমে যাবো ? যদি বলতেন

  2. আমি এইচ এস সি পরীক্ষা দিয়েছি।বিদেশে যাবো চাকরি করবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *